শনিবার , জানুয়ারি ২২ ২০২২
Breaking News

বীরগঞ্জ হানাদার মুক্ত দিবস পালিত

মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ বীরগঞ্জ হানাদার মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে। ১৯৭১ সালের ৬ডিসেম্বর এ দিনে স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে প্রথম শত্রুমুক্ত হয় দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলা।

সোমবার দিবসটি উদযাপনে সকাল থেকে নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

এ উপলক্ষে সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ শেষে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে পৌরশহরে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে বীরগঞ্জ প্রেসক্লাবের পাশে শহীদ মহসীন আলী’র কবরে ও তাজমহল মোড়ে শহীদ বুধারু স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন।

পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আমিনুল ইসলাম। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আব্দুল কাদের এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কালিপদ রায়, বীরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো. মোশারফ হোসেন। অন্যানদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা কমিশনার (ভূমি) মো. কামাল হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা তরিকুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়শা আক্তার বৃষ্টি, উপজেলা আ,লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. শামীম ফিরোজ আলম। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. হুমায়ুন কবির। এ সময় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রবীন্দ্র নাথ গোবিন বর্মন, উপজেলা আ,লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম সরকার, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ইয়াছিন আলী, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক আ. কাইয়ুম চৌধুরী, বীরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি আবেদ আলী, উপজেলা বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। শেষে মহান মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যার শহীদের স্বীকৃতি স্বরুপ ৬ শহীদ পরিবারকে সম্মাননা স্মারক প্রদান করেন ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেন প্রধান অতিথি মো. আমিনুল ইসলাম।

কপি করা সম্পন্ন নিষেধ কপিরাইট: তোফাজ্জল  উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালে মুক্তির উল্লাসে মেতেছিল বীরগঞ্জ। এই দিনে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীকে পিছু হটিয়ে বীরগঞ্জকে হানাদার মুক্ত করা হয়েছিল। বাংলাদেশের মানচিত্র লাল-সবুজের পতাকা মুক্ত বাতাসে উড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। মুক্তিযুদ্ধকালীন ৬ নম্বর সেক্টরের ফিল্ড কমান্ডার মেজর জেনারেল (অব.) এম মাসুদুর রহমান বীর প্রতীক এবং এফএফ কমান্ডার একেএম মাহবুব উল আলমের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধা ও মিত্রবাহিনী যৌথভাবে পাক হানাদার বাহিনীকে পরাস্ত করে। মুক্তিযুদ্ধে ভাঁতগাও ব্রিজ ও সুজালপুর ইউনিয়নের মদনপুরে সম্মুখযুদ্ধে অনেক মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন।

 

About বীরগঞ্জ টুয়েন্টি ফোর

Check Also

বীরগঞ্জে কয়লা সংকটে ইটভাটা মালিকরা দিশেহারা

মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে কয়লা সংকটে ইটভাটা মালিকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। অবকাঠামো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *